স্ব-অভিজ্ঞতা, নিজস্ব সার্কেল, বিভিন্ন ফোরাম ইত্যাদি মাধ্যমে এসব সাইটের নির্ভরযোগ্যতা প্রমানিত হয়েছে। অর্থাৎ, এসব সাইটে কাজ করে টাকা পাওয়ার নিশ্চয়তা রয়েছে। মাইক্রো সাইটগুলোতে বড় বাজেটের কোন কাজ পাওয়া যায় না। কাজগুলো ছোট ছোট এবং সম্পন্ন করতে সময় লাগে ৫ থেকে ১০ মিনিট। নুতন ফ্রিল্যান্সাররা সহজেই এ কাজগুলো করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এসব সাইটে মূলতঃ Sign-up, Comments, Forum posting, digg, voting, facebook, twitter, bookmarking, yahoo answar ইত্যাদি Seo বিষয়ক কাজগুলো পাওয়া যায়। Seo শিখলে মাইক্রো সাইটের প্রতিটি সাইটেই আপনি কাজ করতে সক্ষম হবেন। আপনি যদি seo ভাল জানেন তবে একটি মাইক্রো সাইটেই প্রতিদিন কমপক্ষে ১ ডলার উপার্জন করতে পারবেন-এটা নিশ্চিতভাবেই বলা যায়। প্রতিদিন এ রকম ৫টি মাইক্রো সাইটে কাজ করলে কমপক্ষে ৫ ডলার উপার্জন করতে পারবেন যদি কাজের ব্যাপারে থাকেন আন্তরিক। যাদের নূন্যতম Page Rank-1 লেভেলের একটি ওয়েব সাইট রয়েছে তারা আরও বেশি উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। Page Rank সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন। মোট কথা, Skill বা দক্ষতার কোন বিকল্প নেই। Seoতে দক্ষ হলে শুধুমাত্র মাইক্রো সাইটেই যে উপার্জনের সুযোগ রয়েছে-তা নয়, বড়ং বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটে যেখানে Bid করে কাজ পাওয়া যায়, যেমনঃ www.odesk.com, Freelancer.com, Scriptlance.com সেখানেও প্রচুর কাজ রয়েছে, যার বাজেটও ভাল, প্রতিযোগিতাও কম।

এ অ্যাপের মাধ্যমে আপনি কোনো প্রতিষ্ঠানের ফিল্ড এজেন্টের কাজ করতে পারবেন। এ জন্য যেসব কাজ করা যেতে পারে তার মধ্যে রয়েছে কোনো দোকানের ডিসপ্লের ছবি তোলা কিংবা ভিডিও করা। এ ছাড়া ভোক্তাদের জরিপ করার কাজও কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান দিতে পারে। এ ক্ষেত্রে আপনার যদি ফোনে ইন্টারভিউ নিতে হয় তাহলে সুন্দরভাবে কথা বলা শিখতে হবে। আর ছবি তুলতে হলে সে জন্য প্রয়োজনীয় উচ্চমানের ডিভাইস থাকতে হবে। অ্যাপটির নাম- Field Agent.
আমি ড্রিল মেশিন দিয়ে ওর গালে একটা ছোট্ট ফুটো করি। মিতিকে নিয়ে এমন নোংরা কথা শুনে আমার রাগ হচ্ছিলো। তবে কাজটা করতে আমার কষ্ট হয়েছে। হাজার হোক, মানুষের চামড়া। মানুষের রক্ত। ও গোঙ্গাচ্ছে। এর মধ্যে ফজরের আযান দিয়ে দিয়েছে। তারপর ওর পাশে বসে অপেক্ষা করি। একটু পর বলি, “রইস তুমি ঢাকায় এসে অনেকগুলো থিয়েটারে কাজ করেছো আমি জানি। তোমার ব্যাপারে যতটুকু জেনেছি তুমি খুব ব্যর্থ থিয়েটারকর্মী ছিলে। খুব বেশিদিন কোথাও টিকতেনা। কিন্তু এটা তো তোমার শুধু শখ ছিলো। আমার ভুল না হলে তুমি রসায়নে একটা মাস্টার্স করেছিলে। বিষয় ছিলো ভৌত রসায়ন। তোমার একটা পেপার ছিলো প্রোটিন ড্রপলেট নিয়ে। বেসরকারী একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে কিছুদিন শিক্ষকতাও করেছিলে। সব ছেড়ে পরে একটা স্কুলে চাকরী নিলে।কেন?”
রইস আমাকে ধমক দিয়ে বলে, “কিরে রাগ উঠতেছে খুব। আমারে নোংরা লাগতেছে। তোর রেজার দিয়ে আজকে যাওয়ার আগে দাড়ি কাইটা যামু। একদম ফকফকা হয়া বাইর হমু। টাকা রাখছোস কই যেন? আমার টাকা লাগবো কিছু। মাইয়া খাইছি, মাল খামুনা এইটাতো হয়না। বহুত আলাপ হইছে। এইবার তোর গলা ছিলমু। ভাব নিসনা খবরদার। ভয় পা আমারে। ভয় পাওয়া বেজন্মা দেখলে ভাল লাগে। তোরে মাইর‍্যা মজা পামু। গা ভরা গোশত।ফ্রাই কইরা খাওন যাইবো। আমি অবশ্য তোর মত কুত্তার মাংশ খাইনা”।
এ অ্যাপের মাধ্যমে আপনি কোনো প্রতিষ্ঠানের ফিল্ড এজেন্টের কাজ করতে পারবেন। এ জন্য যেসব কাজ করা যেতে পারে তার মধ্যে রয়েছে কোনো দোকানের ডিসপ্লের ছবি তোলা কিংবা ভিডিও করা। এ ছাড়া ভোক্তাদের জরিপ করার কাজও কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান দিতে পারে। এ ক্ষেত্রে আপনার যদি ফোনে ইন্টারভিউ নিতে হয় তাহলে সুন্দরভাবে কথা বলা শিখতে হবে। আর ছবি তুলতে হলে সে জন্য প্রয়োজনীয় উচ্চমানের ডিভাইস থাকতে হবে। অ্যাপটির নাম- Field Agent.

অন্যদিকে, খ্রিস্টীয় সভাগুলোতে যোগ দেওয়াকে তোমার যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন। উদাহরণস্বরূপ, তুমি যদি জান যে সামনে তোমার একটা গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা বা বাড়ির কাজ রয়েছে, তা হলে তুমি হয়তো যথেষ্ট আগে থেকেই তা করার জন্য চেষ্টা করতে পার, যাতে এটা তোমাকে সভায় যাওয়া থেকে বিক্ষিপ্ত না করে। এমনকি তুমি হয়তো তোমার শিক্ষকদের সঙ্গে পরিস্থিতিটা নিয়ে কথা বলতে পার, তাদের জানিয়ে রাখতে পার যে, সভার রাতে তারা যে-বাড়ির কাজগুলো দেবে, সেগুলো তারা যদি আগেই জানিয়ে দেয়, তা হলে তুমি তাদের প্রতি খুবই কৃতজ্ঞ হবে। কিছু শিক্ষক-শিক্ষিকা হয়তো সহযোগিতা করতে ইচ্ছুক হবে।


লোকটা ড্রইং রুমের দিকে চলে গেলো। ওর পায়ের আওয়াজ শুনছিলাম খুব মনোযোগ দিয়ে। যেই মনে হলো ও আর রুমে নেই আমি আঙ্গুল একটু ফাক করে চারদিকে দেখার চেষ্টা করছিলাম। নাহ আসলেও চলে গেছে। আমি মিতিকে খুজতে লাগলাম। ও কোথায়? ওকে তো কোথাও দেখতে পাচ্ছিনা। আমার মাথা খারাপ হয়ে যাচ্ছিলো।আমার একটা পা মনে হয় ভেঙ্গে দিয়েছে। আমি কোনরকমে হামাগুড়ি দিয়ে রুম থেকে বের হয়ে ডাইনিং রুমে এসে মিতিকে খুজতে থাকলাম। লোকটা পাশের রুমে সিগারেট খাচ্ছে। লোকটাকে সাহস করে ডাক দিলাম, “ভাই আমার বউ কই? আমি একটু ওর সাথে কথা বলি?”
For some Linux distros, there is a endianness mismatch with the VMUUID value that comes from Azure Resource Manager and what is stored in Log Analytics. The following query checks for a match on either endianness. Replace the VMUUID values with the big-endian and little-endian format of the GUID to properly return the results. You can find the VMUUID that should be used by running the following query in Log Analytics: Update | where Computer == "" | summarize by Computer, VMUUID

ইন্টারনেটে কাজ করার কোন নির্দিষ্ট সময় নেই। আপনার যখন খুশি আপনি তখন কাজ করতে পারেন। আপনি যদি একজন চাকুরিজীবী হন তাহলে আপনি আপনার অফিস থেকে ফিরে part time হিসেবে Online এ কাজ করে Extra Income করতে পারেন। তবে আপনি যদি Online এ কাজ করে ভালো ভাবে জীবন যাপন করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই দৈনিক ৭-৮ ঘণ্টা কাজ করতে হবে। আপনাকে মনে করতে হবে আপনি একটা অফিস এ কাজ করছেন।
প্রায় এক কোটি ৭০ লাখ মানুষের এই শহর ঢাকা। ফলে পর্যাপ্ত ও বিশুদ্ধ পানি পাওয়াটা বেশ কঠিন হয়ে পড়ছে। তবে ওয়াসার তথ্য মতে, পানি উৎপাদনে ঘাটতি নেই, তবু রাজধানীর বিভিন্ন অঞ্চলে চলছে পানির সংকট। ঢাকা ওয়াসা কর্তৃপক্ষের ভাষ্য মতে, ২৪০ কোটি লিটার পানির চাহিদা রয়েছে রাজধানীতে, অন্যদিকে উৎপাদন রয়েছে ২৪৫ কোটি লিটার। কিন্তু নানা অব্যবস্থাপনার কারণে গ্রাহকরা তাঁদের চাহিদা অনুযায়ী পর্যাপ্ত পানি পাচ্ছেন না। বিশেষ করে ওয়াসার পানির অনেক চোরাই সংযোগ রয়েছে। অবৈধ সংযোগ করতে গিয়ে লাইন ছিদ্র হয়ে যায়, সেই ছিদ্র দিয়ে পানিতে ময়লা প্রবেশ করে। ফলে পানিতে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। এ ছাড়া নদীর পানিতে খুব বেশি পরিমাণ ময়লা-আবর্জনা থাকে, সেই পানি রিফাইন করে বিশুদ্ধ করতে প্রচুর কেমিক্যাল ব্যবহার করতে হয়। এ কারণেও দুর্গন্ধ হয়। ঢাকা ওয়াসার তথ্য মতে, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন এলাকায় ওয়াসার প্রায় পৌনে চার লাখেরও বেশি গ্রাহক সংযোগ রয়েছে। তবে একটি বাড়িতে একটি সংযোগ থাকলেও সেখানে একাধিক পরিবার বাস করছে। ফলে বাস্তবে গ্রাহকের সংখ্যা কয়েক গুণ বেশি। নিজের দায় এড়িয়ে উত্তর সিটি করপোরেশনের ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার সালেক মোল্লা বলেন, ‘এটা তো আমার দেখার বিষয় না। পানির সমস্যা দেখবে ওয়াসার লোকজন। ওখানে যে পানির সমস্যা, এটা
আলেক্সা মতে বিশ্বের বৃহত্তম ওয়েবসাইটের এক অনুদান বন্ধ রান এবং আপনি সম্ভবত ঠিক উইকিপিডিয়া কি জানেন. এখন সময় আপনার ওয়েবসাইটে একটি দান বাটন নির্বাণ সবচেয়ে উপেক্ষিত হয় কারণ মানুষ একটি পণ্য বা সেবা বিক্রি করে যে কিন্তু উইকিপিডিয়ার মত বিশ্বের ব্যবহারে বৃহত্তম ওয়েবসাইটের কিছু মত এরকম অর্থ উপার্জন করতে চান একটি দান বাটন এবং তারা অনুদান ছুট আমার মনে আছে আমি একটি পুরাতন ইবে ক্যালকুলেটর ইবে ফি ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে বরং ব্যবহার করা হয় এবং এটা বিনামূল্যে ছিল এবং সেখানে একটি দান বাটন ক্যালকুলেটর পাশে এবং আমি আসলে একটি কয়েক বার দান কারণ আমি এত ক্যালকুলেটর ব্যবহার এবং আমার Sify এর সঙ্গে সাহায্য ছিল স্মরণ বিক্রেতা ফি. সুতরাং আপনি কিছু দান করছি দূরে আপনি একটি দান বাটন যাহা পণ্য বা সেবা আপনি বিনামূল্যে জন্য প্রস্তাব করছি পরবর্তী নির্বাণ বিবেচনা করতে পারেন.
আপনি ফেরত পেয়ে ভালোবাসি? কিভাবে শীতল এটা আপনি ইতিমধ্যে কেনা করেছি কাপড় ফিরে একটি জিনিস করতে না করেও টাকা পেতে হবে? Paribus একটি অ্যাপ্লিকেশন আপনি খুঁজে বের করতে যদি দোকানে আপনি অনলাইনেই shopped করেছি আপনি একটি প্রত্যর্পণ পাওনা দেয়. এটা সাইন আপ বিনামূল্যে. Paribus আপনার ই-মেইল অ্যাকাউন্টে সংযোগ এবং আপনার রসিদ পরীক্ষা করা হবে. যদি তারা জানতে একটি খুচরা বিক্রেতা তাদের মূল্য কমে গেছে তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার জন্য একটি মূল্য সমন্বয় অভিযোগ দায়ের. Paribus চেষ্টা করে দেখুন.

Project and item templates automate the process of setting up different types of projects and files, saving you valuable time and relieving you from managing intricate and error-prone details. Visual Studio provides templates for web, Azure, data science, console, and other types of projects, along with templates for files like Python classes, unit tests, Azure web configuration, HTML, and even Django apps.
অনলাইনে আপনি হ্যান্ডমেড উপাদান বিক্রি করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে দেশের কিংবা বিদেশের বিভিন্ন স্থানের উৎপাদনকারী ও বিক্রেতাদের থেকে মানসম্মত পণ্য নিয়ে তার ছবি ও গুণাগুণসহ অনলাইনে তুলে দেবেন। এরপর আগ্রহী ক্রেতারা আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করবে। তাদের হাতে পণ্যগুলো পৌঁছানোর একটি ভালো ব্যবস্থা ও অর্থ তোলার জন্য ব্যবস্থা করতে হবে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশে বর্তমানে বিকাশসহ কয়েকটি উপায়ে অর্থ নিতে পারবেন। এ ছাড়া ক্যাশ অন ডেলিভারি একটি ভালো উপায় হতে পারে।
এমন কাজ করে পরিবারের সবার মুখে অন্ন তুলে দেয়ার দৃষ্টান্ত আছে লক্ষ লক্ষ৷ লিসা শুধু নিজের পরিবারের দুর্দিন দূর করেননি, তাঁর বুদ্ধি, শিক্ষা আর কর্মদক্ষতায় ফিলিপিন্সের একটি গ্রামের চেহারাও পাল্টে গেছে৷ সেই গ্রামেই লিসার জন্ম৷ এক সময় হাতে টাকা নেই বলে অনেক চাষযোগ্য জমির মালিক জমিতে চাষ করতে পারতেন না৷ লিসা সেই সিঙ্গাপুর থেকে টাকা পাঠান৷ ফলে গ্রামে এখন বিরান ভূমি খুঁজে পাওয়া দুষ্কর৷ ভাগ্যদোষে নিজে লেখাপড়া করতে পারেননি৷ বড় সাধ ছিল পরিবারের পরবর্তী প্রজন্মকে লেখাপড়া করাবেন৷ লিসা সেই সাধও অপূর্ণ রাখেননি৷ তাঁর খরচেই পড়ালেখা করছে নিজের ভাইদের ছয় ছেলে-মেয়ে৷ এখানেই শেষ নয়৷ এক সময় পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারীর মৃত্যুতে যে পরিবারটি প্রায় পথে বসেছিল, লিসার কারণে সেই পরিবারই এখন গ্রামের সবার অহংকার৷ তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক লিসাকে নিয়েও গর্বের শেষ নেই৷
এ অ্যাপটি আপনাকে নিজস্ব আয়ের উৎস তৈরি করতে সহায়তা করবে। এ ক্ষেত্রে আপনি যদি বিভিন্ন প্রফেশনালদের সহায়তা করতে পারেন তাহলে এ কাজের উপযুক্ত বলে বিবেচিত হবেন। এসব কাজের মাঝে রয়েছে যে প্রফেশনালরা কাস্টমার খুঁজছেন, তাদের কাস্টমার খুঁজে দেওয়া। যেমন পার্সোনাল ট্রেইনার, মেকআপ আর্টিস্ট, পেইন্টার, ফ্লোরিস্ট ইত্যাদি পেশার লোকজনের জন্য কাজ করা। প্রফেশনালরা আপনাকে জানিয়ে দেবে যে, কোন কোন বিষয়ে তাদের সহায়তা প্রয়োজন। সে অনুযায়ী আপনার কাজ করতে হবে। অ্যাপটির নাম- Thumbtack.

| summarize computersCount=dcount(SourceComputerId, 2), displayName=any(Title), publishedDate=min(PublishedDate), ClassificationWeight=max(iff(Classification has "Critical", 4, iff(Classification has "Security", 2, 1))) by id=strcat(UpdateID, "_", KBID), classification=Classification, InformationId=strcat("KB", KBID), InformationUrl=iff(isnotempty(KBID), strcat("https://support.microsoft.com/kb/", KBID), ""), osType=2
খুব অদ্ভূত লাগলো। এতো রাতে কেউ পার্সেল দিতে আসে। আমার বেশি কিছু চিন্তা করার মানসিকতা ছিলোনা।আস্তে করে দরজা খুলি। সিড়ির লাইট বন্ধ ছিলো। তাই কাউকে দেখলাম না। সাড়া না পেয়ে দরজার বাহিরে মাথা বের করে উঁকি দিলাম। ঠিক তখন মনে হলো চারদিক অন্ধকার হয়ে গেলো। তারপর একটা প্রলয়ংকারী ঝড় কোথা থেকে কিভাবে আসলো বুঝলাম না। কি প্রচন্ড যন্ত্রণা। আমি কি মরে যাচ্ছি? মনে হয়। ঝপ করে পড়ে গেলাম। এরপর সব অন্ধকার। আর কিছু মনে পড়ছিলোনা।কিচ্ছু না।
I earn on average $200-$400 per week and spend about 6 hours on my spray tanning business each week. BronzedBerry has given me my confidence back.  Let’s face it, most of us have gotten involved with some type of MLM and I knew that this business was different. I prayed about it for a while and every time I did, I felt a sense of relief. I decided to sign up and give it my best and still work my regular full time job.  I have a wonderful business that helps women feel good about themselves.  I never thought that I would be where I am today and I am so grateful for the opportunities that BronzedBerry has given me. 
×